E-Sim Technology জগতে বাংলাদেশ e-SIM কি এবং কেন।

বাংলাদেশে ই সিম।

আপনার হাতে থাকায় স্মার্টফোন অথবা ফিচার ফোন যাই হোক না কেন আমরা কিন্তু সবাই সিম কার্ড ব্যবহার করি। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে সিম কার্ডের একটি নতুন সংযোজন এসেছে। সেটা কে বলছি E-Sim কার্ড। বাংলাদেশের ব্যবহার E-Sim কি কি সুবিধা পাবেন এবং কি কি অসুবিধা থাকবে এই সিমে। এসব বিষয়ে বিস্তারিত জানাবো এই আর্টিকেলটিতে।এ বছরের 16 ই ডিসেম্বর e-Sim Brand বন্ধুর হাত ধরে বাংলাদেশে e-Sim জগতে প্রবেশ করেছে। প্রশ্ন হতে e-Sim কি e-sim মূলত EMBEDDED SIM সাবস্ক্রাইবার আইডেন্টিফিকেশন মডিউল। যেটাকে সহজে e-Sim বলা হচ্ছে।

E-Sim Technology জগতে বাংলাদেশ e-SIM কি এবং কেন।

এটা মূলত একটি ইলেকট্রনিক্স মাইক্রোচিপ যেটা মাদারবোর্ডে সাথে সংযুক্ত থাকবে। এতদিন আপনি আমি যে সিম দেখে আসছি এর জন্য সিমের আলাদা স্লট থাকতো। প্রথমে আমরা বড় সিমগুলো দেখেছি এখন যত দিন যাচ্ছে সেগুলো মাইক্রো এবং নেনো পর্যন্ত চলে এসেছে। মজার ব্যাপার হল ইলেকট্রনিক সিম কার্ড সেটি ন্যানো সিম কার্ড থেকে অনেক গুণে ছোট। যেটা মাদারবোর্ডে সংযুক্ত থাকবে তবে এটি কাজ করবে কিন্তু বর্তমান সিম কার্ডের মতই। তাহলেই সিমকার্ড ব্যবহারে আপনি কি কি সুবিধা পাবেন। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে অপারেটর পরিবর্তন না করেই আপনি e-Sim বা micro-sim ব্যবহার করতে পারবেন।


 যে কোন অপারেটরের যেকোনো সেবা সার্ভিস নিতে পারবেন। সেটা কিভাবে..? আপনার যে স্মার্টফোনটি বা ফিচার ফোনটি রয়েছে সেখানে সিম স্লট রয়েছে সেটিতে শুধুমাত্র একটি বা দুটি টেলিকম অপারেটরের সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। যেমন আপনার ফোনে থাকা গ্রামীনফোনের সিম কার্ড থেকে শুধুমাত্র গ্রামীণফোনের সেবাই পাওয়া যাবে অন্য কোন টেলিকম পার্টনারের সেবা আপনি নিতে পারবেন না। অন্য সিম কোম্পানি সার্ভিস সেবা গ্রহণ করার ক্ষেত্রে আপনাকে ওই কোম্পানির সিমটি কিন্তে হয়। কিন্তূ e-Sim ব্যবহারের মাধ্যমে আপনি যেকোন কোম্পানির নেটওয়ার্ক ব্যবহার করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে সিম কার্ড খুলে পরিবর্তন করতে হবে না।

যেহেতু সিমকার্ড না খুলেই আপনি যেকোন অপারেটরের সেবা গ্রহন করতে পারবেন তাই একে বলা হয় ডিজিটাল সিম কার্ড। এই সিম কার্ডে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে অন্যান্য সাধারণ সিম কার্ডের চেয়ে যদিও এর কাজ কিন্তু একই। অন্যান্য সাধারণ সিম ব্যবহার করে আমি আপনি যে সুবিধাগুলো এখন পেয়ে থাকি সেইম সুবিধা গুলো কিন্তু আমরা এই সিম কার্ডে পাবো। সেই হিসেবে e-Sim কে বলা যেতে পারে বলা  বর্তমানে প্রচলিত আধুনিক ভার্ষণ। তবে বর্তমানে প্রচলিত সিম কার্ড এবং ই-সিম কার্ডের মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে E-Sim সিম কার্ড খুলতে হয় না। সাধারণত প্রচলিত সিম কার্ড গুলো আপনাকে খুলে পরিবর্তন করতে হয়। যদি আপনি এক টেলিকম অপারেটর পরিবর্তে অন্য টেলিকম অপারেটরের সেবা গ্রহণ করতে চান। আরেকটি প্রশ্ন জাগতে পারে সেটি হচ্ছে আপনি কি এখনি চাইলে আপনার ফোনে ই-সিম ব্যবহার করতে পারবেন সোজাসাপ্টা উত্তর হচ্ছে না। আরো বিস্তারিত বললে বলা যায় আপনি যদি এখন বাংলাদেশে থাকেন এবং আপনার কাছে একটি ই-সিম কার্ড সাপোর্ট ফোন থাকে তাহলেও আপনি ব্যবহার করতে পারবেন না।


কারণ বাংলাদেশের টেলিকম কোম্পানি এখন পর্যন্ত ই-সিম কার্ড চালুর জন্য চুক্তিবদ্ধ হয় নি।বা সেবা টি  গ্রহণে রাজি হয়নি। যদি কোন অপারেটর সেটি গ্রহণে রাজি হয় তাহলে আপনি ই-সিম কার্ড ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন। শুধু তাই নয় সাথে কিন্তু ই-সিম সাপোর্টেড ডিভাইসের প্রয়োজন হবে।তবে যেহেতু সরকারিভাবে হয়েছে তাহলে চালু  আমরা আশা করি অতি দ্রুত বাংলাদেশের সিম ব্যবহারের সুযোগ পাবেন সারা বিশ্বে বর্তমানে এর প্রচলন রয়েছে উন্নত দেশগুলো বিশেষ করে। তবে বর্তমানে যেসব দেশে ব্যবহার করা হচ্ছে সেখানে সিম দুটো একসাথে ব্যবহারের উপযোগী রয়েছে তার মধ্যে উন্নত দেশ গুলোতে এখন পর্যন্ত ব্যবহার করার সুযোগ আছে। তবে কিছু সমস্যা বা অসুবিধা রয়েছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য যে অসুবিধা সেটি হচ্ছে বর্তমান যে সিম গুলো প্রচলিত রয়েছে সেগুলো কোন ধরনের সমস্যা হলে আমরা তা পরিবর্তন করি। কিন্তু সাধারণ মানুষের জন্য ই-সিম গুলো পরিবর্তন করা ঝামেলার বিষয় শুধু তাই নয় বেশ জটিলও।

বর্তমান সিম গুলো নষ্ট হলে আমরা ফোন বা সিম কার্ড চেঞ্জ করে ব্যবহার করতে পারি । কিন্তু এই সিমের ক্ষেত্রে সেটি খুবই জটিল। বর্তমানে যে সিম গুলো ব্যবহার করা হয় তা আমরা খুব সহজেই দোকানে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন এর মাধ্যমে ক্রয় করতে পারি। কিন্তু এই সিম ব্যবহারের ক্ষেত্রে সরাসরি আপনাকে টেলিকম অপারেটর এর সাথে কথা বলতে হবে আপনি কোন কোন বিষয়গুলো বিবেচনায় ই-সিম কিনতে চান। সে অনুযায়ী অপারেটর আপনাকে প্রোভাইড করবে। তবে আশা করি দ্রুত এই সুবিধা সাধারণ মানুষ খুব ভালোভাবে গ্রহণ করবে। তবে সামনের দিনগুলো যে ই-সিম কার্ডের সেটা এখনই বলা যায়। ই-সিম কার্ড সম্পর্কে আপনি কি জানেন জানাতে পারেন কমেন্ট করে আর্টিকেলটি কেমন লাগলো সে ব্যাপারে জানাতে পারেন । ধন্যবাদ।

Doridro IT

Hello Friends, My Name Is Mohammad Ismail. Welcome To The DoridroIT Website.

আপনার মুল্যবান মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন