স্মার্টফোনের ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা বন্ধ করার উপায়।


অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ব্যাকগ্রাউন্ড ডেটা ব্যবহার রোধ করবেন যেভাবে।

স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের মধ্যে অনেকেই একটা বিষয় জানে না যে কখনো কখনো অনেক অ্যাপস ব্যবহার না করা সত্ত্বেও সেগুলো ডাটা ইউজ করে। মূলত অ্যাপস গুলো ব্যবহার না করা সত্বেও এগুলো ব্যাকগ্রাউন্ডে Data Backup অথবা Sync সংক্রান্ত বিভিন্ন কাজে আপনার ডাটা খরচ করে থাকে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায় Facebook, Instagram, Twitter এগুলোর মত অনেক অ্যাপস রয়েছে যা চালু করা না থাকলেও ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা খরচ করতে থাকে। অনেক সময় দেখা যায় এভাবে আমাদের ডাটা অপচয় হচ্ছে।

যাদের বাসায় ওয়াইফাই ইন্টারনেট রয়েছে তাদের এক্ষেত্রে ডাটা অপচয় কোনো বিষয় নয় কেননা ওয়াইফাই ডাটা আনলিমিটেড হয়ে থাকে। আমরা যারা মোবাইল ডাটা ইউজ করি তাদের জন্য এমবি অপচয় একটি লস প্রজেক্ট।

ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা লস সমাধান।

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় একটি অপারেটিং সিস্টেম হচ্ছে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম। অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম এর জনপ্রিয়তার মূল কারণ হচ্ছে এ অপারেটিং সিস্টেম টি খুবই ফ্রেন্ডলি। যার সম্পূর্ণ কন্ট্রোল ইউজারের হাতে। ইউজাররা অ্যাপস পার্মিশন নোটিফিকেশন ষ্টোরেজ, ব্যাটারি ইত্যাদি নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। একই সাথে এই অপারেটিং সিস্টেমের ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা নিয়ন্ত্রণের সুযোগ রয়েছে। যে কেউ চাইলে নির্দিষ্ট যে কোন অ্যাপস এর ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা ব্যবহার বন্ধ করে দিতে পারেন। একই সাথে আপনি চাইলে যে কোন নির্দিষ্ট একটি বা দুটি অ্যাপস এর ডাটা ব্যবহার বন্ধ রাখতে পারবেন ওয়াইফাই ব্যবহারের সময় অথবা মোবাইল ডেটা ব্যবহারের সময়।

কিভাবে ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা অপচয় বন্ধ করবেন।

প্রথমে ফোনের সেটিং অপশনে গিয়ে অ্যাপ্লিকেশন সেকশনে ক্লিক করুন।




মে অ্যাপসের ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা বন্ধ করতে চান সেটি সিলেক্ট করুন।


সেই অ্যাপসের App Info তে ক্লিক করুন। অথবা স্ক্রিনে থাকা যে কোন অ্যাপস এ টাচ করে ধরে রাখলেই App Info অপশন টি আসবে আসবে।



এখান থেকে পছন্দমতো ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা ডিজেবল করে দিতে পারবেন।



যদি আপনি মোবাইল ডাটা ডিজেবল করতে চান সে ক্ষেত্রে মোবাইল ডাটা টিক মার্ক তুলে দিন।

অথবা যদি ওয়াইফাই ডাটা ডিজেবল করতে চান তাহলে ওয়াইফাই ডাটা টিক মার্ক টি তুলে দিন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য

অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে কিছু অ্যাপস রয়েছে যেগুলোর ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা বন্ধ না করাই ভালো। কেননা অনেক অ্যাপস এর নোটিফিকেশন আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। যেমন জিমেইল। ফোনের ডিফল্ট মেসেজ অ্যাপস। অথবা Facebook Messenger এবং Facebook apps. Instagram বা Twitter, এসকল অ্যাপস এর ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা বন্ধ করে দিলে নোটিফিকেশন আসা বন্ধ হয়ে যাবে অথবা এগুলো দিয়ে নেট ব্রাউজ করতে পারবেন না সেক্ষেত্রে এগুলোর ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা বন্ধ না করাই ভালো।

Doridro IT

Hey, I am Ismail , Founder of DoridroIT.com Welcome To The DoridroIT Website. facebook youtube instagram twitter

নবীনতর পূর্বতন