হস্তমৈথুন বা Masturbation ভালো না খারাপ..?

আসসালামু আলাইকুম নতুন আর্টিকেল নিয়ে চলে আসলাম দরিদ্র আইটি'র ভিজিটরদের জন্য। আমার ওয়েবসাইটে ভিজিট করার জন্য আপনাদের সবাইকে জানাচ্ছি অনেক ধন্যবাদ। আশা করছি আর্টিকেলটি পড়ে আপনি উপকৃত হবেন।

{tocify} $title={Table of Contents}

হস্তমৈথুন কি

নিজের যৌনাঙ্গে নিজে থেকে যৌনতৃপ্তি উপভোগ করা তথা হস্তমৈথুন বা স্বমেহনকে বিভিন্ন ধর্মে বিভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে এবং এটি এখন আইন, সামাজিক বিতর্ক, অ্যাক্টিভিজম, পাশাপাশি যৌনতত্ত্বের বৌদ্ধিক অধ্যয়নের বিষয় হয়ে উঠেছে। হস্তমৈথুন ট্যাবু সম্পর্কিত সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি বিভিন্ন সংস্কৃতিতে এবং ইতিহাসে বিভিন্নরকম।

হস্তমৈথুন করলে কি হয়


আজকে আমি কথা বলবো Masturbation বা বাংলায় যেটিকে আমরা হস্তমৈথুন বলে থাকি সেটি নিয়ে। এই টপিকটি নিয়ে কথা বলার জন্য আমি অনেক প্রশ্ন পেয়েছি এবং অনেকে আমাকে ব্যক্তিগতভাবে আমার পেজে ইনবক্স করেছেন. অনেকে আমাকে ইমেল করেছেন। অনেক প্রশ্ন একসাথে পেয়েছি। তো আমার মনে হল যে এটি যেহেতু খুবই Sensitive একটি topic এই সমস্যা নিয়ে কেউ কথা বলতে চায় না। তো যেহেতু আপনারা আমার কাছে জানতে চেয়েছেন একজন doctor হিসেবে বা একজন physician হিসেবে এই masterbation বা হস্তমৈথুন এর যে মেডিকেল অ্যাসপেক্ট আছে সেটি নিয়ে আপনাদের যে Common প্রশ্ন গুলো আছে তা নিয়ে আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করব।

মেয়েদের হস্তমৈথুন

Masturbation নিয়ে প্রথম যে প্রশ্নটি সবাই করে থাকেন সেটি হচ্ছে যে আসলে কত percentage মানুষ messeurbate করেন।
আমাদেরকে মনে রাখতে হবে যে Masturbation আসলে একটি normal human behaviour অর্থাৎ খুব স্বাভাবিক জীবনযাপনেরই একটি প্রক্রিয়া বলা যেতে পারে। তো যেটা আমরা statistically দেখি সেটা হচ্ছে যে চোদ্দ থেকে আঠারো বছর বয়স. এই রেঞ্জের ভেতরে
ভাবে seventy three percent পুরুষ mastribate করেন এবং মোটামুটি ভাবে forty eight Percent নারী masturbabate করেন এবং এরপর আস্তে আস্তে বয়েস যত বাড়তে থাকে এই পার্সেন্টেজটা কমতে থাকে কিন্তু আবার দেখা যায় যে fifty seven থেকে
four যখন age হয় সেই সময়ের মধ্যে মোটামুটি ভাবে sixty three পার্সেন্ট male Masturbation করেন এবং thirty two পার্সেন্ট female করেন।

মেয়েদের হস্তমৈথুন

কাজেই দেখা যাচ্ছে যে আমাদের statistics তাতে
অনেক বড় একটা পার্সেন্টেজের মানুষই পুরুষ বা মহিলা সবাই কিন্তু এই mastoration করে থাকেন কাজেই এটি খুবই স্বাভাবিক একটি প্রক্রিয়া এবং একটি normal healthy human behaviour.


অতিরিক্ত হস্তমৈথুনের ফলে কি হয়

এরপরে যে প্রশ্নটি আসছে সেটি হচ্ছে যে এই যে Masturbation এটি আসলে কি হেলদি না এটি হার্মফুল. অর্থাৎ এটি ভালো না আপনার শরীরের জন্য ক্ষতিকর..?

তো Masturbation এর কতগুলো advantage বা সুবিধা রয়েছে, সেটা হচ্ছে যে এটা যেমন আপনার sexual tension কে কমায়, আপনার stress কমায়, আংজাইটি কমায়, ঘুম ভালো আসতে হেল্প করে. আবার অনেক সময় মেয়েদের ক্ষেত্রে দেখা যায় যে period এর সময় যে cramp হয় বা pain হয় সেটা কমায়।

আবার দেখা যায় পেল week of floor এর যে muscle গুলো আছে সেটি যেগুলো আপনার ইজাকুলেশান, irrection এবং urine এইগুলো কাজের জন্য responsible. সেই মাসেলটাকে অনেক সময় এটা ষ্ট্রেনদেন করে বা শক্তিশালী করে।

এছাড়াও Masturbation এ দেখা যায় আরেকটি উপকার হচ্ছে যেটা সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেড ডিজিজ বা এসটিডি থেকে আপনাকে প্রটেক্ট করতে পারে। তো Masturbation এর আসলে কতগুলো scientific benefit ও রয়েছে।

হস্তমৈথুনের কিছু ভুল ধারণা

এরপরে আসছি যে কি কি common meet আছে বা কি কি প্রচলিত ধারণা আছে যেগুলো নিয়ে confusion আছে। সেটি হচ্ছে যে অনেকেই আসলে মনে করেন যে Masturbation আসলে খুবই unhealthy একটি habit এবং এটি আপনাকে week করে ফেলতে পারে. আপনাকে দুর্বল করে ফেলতে পারে। মেন্টালি ফিজিক্যালি অনেকে ভাবেন যে আপনি বন্ধ্যাত্ব হয়ে যেতে পারে, স্পার্ম কাউন্ট কমে যেতে পারে. টোটালি আপনার যে একটা কনফিডেন্স লেভেল সেটা কমে যেতে পারে। এবং আবার অনেকে এটাও মনে করেন যে এটা blindness বা Masturbation যারা করেন তারা অন্ধ হয়ে যেতে পারেন। তো এই যে কতগুলো মিথ বা প্রচলিত ধারণা আছে সেগুলোর আসলে সাইন্টিফিক বা মেডিক্যাল কোনো ভিত্তি নেই। এগুলো মোটামুটি ভাবে প্রচলিত ধারণা এবং অনেকাংশে এগুলো খুবই ভ্রান্ত ধারণা।

হস্তমৈথুনের নির্দিষ্ট কোন সংখ্যা নেই

এরপরে আ যে প্রশ্নটি আসছে সেটি হচ্ছে যে কতবার masterbet করা আসলে নরমাল বা স্বাভাবিক।

এটি আসলে আপনার ব্যক্তিগত একটি অভ্যাস. এটি কেউ প্রতিদিন করেন. কেউ সপ্তাহে একদিন করেন. কেউ মাসে একবার করেন. কেউ বছরে একবার করেন. এটার আসলে কোন এক্স্যাক্ট নাম্বার নেই, যে এই নাম্বারটি সঠিক এতবার করলে এটি হেলদি এবং এর উপরে চলে গেলে আপনি আন হেলদি। এটা আসলে সেভাবে বলা সম্ভব নয়। তবে Masturbation এর বিষয়টি আমি আগেও বললাম যে এটি আসলে একটি হেলদি হিউম্যান বিহেভিয়ার।

এটি তখনই আপনার জন্য হার্মফুল, যখন আপনি এটার প্রতি অ্যাডিক্টেড হয়ে যাবেন। ধরুন যেটি আপনার কোয়ালিটি অফ লাইফে যখন হ্যাম্পার হবে তখন আপনি মনে করুন যে আপনি কাজে কনসেনট্রেট করতে পারছেন না. আপনি আপনার ব্যক্তিগত জীবনে যখনই কোনো সোশ্যাল ইভেন্টে যাচ্ছেন কোনো ফ্যামিলি ইভেন্টে যাচ্ছেন কিংবা আপনি খুব কনসেনশন দিয়ে একটি কাজ করছেন সেই সময় দেখা গেলো যে আপনার মাথার মধ্যে সারাক্ষণ এই ধরনের একটি টপিক ঘোরাফেরা করছে এবং মনে হচ্ছে যে না হলে আপনি সুস্থ হতে পারছেন না, নর্মাল হতে পারছেন না. অর্থাৎ আপনার ডে টু ডে লাইফে যে আপনার কোয়ালিটিটা সেটা যখন হ্যাম্পার করা শুরু করবে সেই সময় থেকে এটি আপনার জন্য ক্ষতিকর। অর্থাৎ এটার সারমর্ম হচ্ছে যে এটির প্রতি addicted হওয়া যাবে না।

কোন জিনিসই অতিরিক্ত করা বা অতিরিক্ত addiction. এটা কোন অবস্থাতেই কোন সুস্থ স্বাভাবিক behaviour না. এবং যারা এ ধরনের addicted হয়ে যায় তখন তাদের জন্য suggestion হচ্ছে যে, আপনাকে একজন সাইকোলজিকাল কাউন্সিলর এর সাথে আপনাকে তখন consult করতে হবে. বা কথা বলতে হবে।

হস্তমৈথুন রিলেশনশিপ এর জন্য ভালো না ক্ষতিকর

সবশেষে যে প্রশ্নটি আসে সেটি হচ্ছে যে এটা আপনার relationship এর জন্য যারা relationship এ আছেন তাদের জন্য ভালো না ক্ষতিকর..?


আপনি যখন যারা ম্যারেড বা রেগুলার সেক্সুয়াল এক্টিভিটিসের ভেতরে আছেন তাদের জন্য যেটা হচ্ছে যে আপনি যখন কোনো রিলেশনশিপে আছেন তখন এটার কতগুলো প্লাস পয়েন্ট হচ্ছে যে এই relationship এ থাকা অবস্থাতে যদি আপনি masterbet করেন তখন যেটা হচ্ছে, সেটা হলো যে আপনার partner এর সাথে আপনার একটা understanding হতে পারে একটা খোলামেলা আলোচনা হতে পারে দুজনের সমঝোতার মধ্যে যদি আপনি এই practice টা করেন সেটা হচ্ছে যে আপনি আসলে কি পছন্দ করেন। কোনটা পছন্দ করেন না. এটা নিয়ে দুজনের মধ্যে একটা খোলামেলা আলোচনা হতে পারে।

যেটা আপনাদের সম্পর্কটাকে আরো দৃঢ় বা সুদৃঢ় করতেই হেল্প করবে বলে আমি মনে করি কিন্তু যারা relationship এ আছেন তাদের মধ্যে যদি দেখা যায় যে তাদের যে regular sex সেটা না হয়ে যদি দেখা যায় যে কন্টিনিউয়াস আপনি শুধুমাত্র Masturbation এ-ই অভ্যস্ত হয়ে গেলেন সেটি কিন্তু কোনোভাবেই কোনো হেলদি প্র্যাকটিস নয়।

কাজেই যারা রিলেশনশিপের মধ্যে আছেন তারা যদি মাঝেমধ্যে Masturbation করে যে দুজনের বোঝাপড়ার মধ্যে যদি এটি হয় তখন সেটির একটি বেনিফিট রয়েছে। রিলেশনশিপে থেকে শুধুমাত্র হস্তমৈথনে অভ্যস্ত না হওয়া ভালো। রিলেশনশিপ থাকা অবস্থায় যদি আপনি কন্টিনিউ মাস্টারবেশন করতেই থাকেন সেক্ষেত্রে আপনার লাইফটাকে আরো ক্ষতিকর করে তুলবে হস্তমৈথুন।

শেষ কথা

মাস্টারবেশন নিয়ে যতগুলো কমন প্রশ্ন আমি পেয়েছি সেগুলোর যথাযথ উত্তর দেয়ার চেষ্টা করেছি। এই টপিক নিয়ে আসলে আমরা অনেকেই কথা বলতে চাই না খোলামেলা কথা বলি না বা অনেক ধরনের ইতস্ততার কারণে এসব বিষয় বলা হয়ে ওঠে না।

হস্তমৈথুন সম্পর্কে যদি আপনার সঠিক ধারণা থাকে তাহলে আপনার পার্সোনাল লাইফ এবং সেক্সুয়াল লাইফ কে আরো হেলদি এবং হ্যাপি করবে।

আলোচনা করেছেন।
Dr.Shahnaz Choudhury.

এই আর্টিকেলটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে অবশ্যই লাইক কমেন্ট শেয়ার করবেন এবং আপনার মতামত। ইসলামি শরিয়াহ অনুযায়ী হস্তমৈথুন সম্পুর্ন হারাম। এই আর্টিকেলে  কাউকে হস্তমৈথুন করতে উৎসাহী করছিনা। এটি মেডিকেল থিওরি অনুযায়ী লেখা।
Doridro IT

Hey, I am Ismail , Founder of DoridroIT.com Welcome To The DoridroIT Website. facebook youtube instagram twitter

নবীনতর পূর্বতন